০৫:০৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪

কাতার বিশ্বকাপ বয়কটের কারণ…

ডুয়া লিপা ও শাকিরা

এবার বিশ্বকাপ ফুটবল আসর এবার বসছে কাতারের মাটিতে। এরজন্য শুরু থেকেই আয়োজক প্রতিষ্ঠান ফিফার বিরুদ্ধে অসন্তোষ প্রকাশ করে আসছিলো বিশ্বের নানা তারকা এবং বিভিন্ন মানবাধিকার প্রতিষ্ঠান। প্রায় সবার অভিযোগ এমন- ফিফা মানবাধিকারের চেয়ে আর্থিক লাভটা বেশি দেখেছে এবারের আয়োজনের মাধ্যমে।

তবে শেষ বেলায় উদ্বোধনী চমকের আগমুহূর্তে শিল্পীদের পক্ষ থেকে যে এভাবে বিস্ফোরণ ঘটবে, সেটি সম্ভবত কেউ ধারণা করেনি।

জমকালো উদ্বোধনী আসরের দু’দিন আগে দুটো বড় বিস্ফোরক মন্তব্য ছুঁড়ে দিলেন ব্রিটিশ তারকা তারকা ডুয়া লিপা এবং কলোম্বিয়ান তারকা শাকিরা। তাই নয়, কিছু খেলোয়াড়ও ঘোষণা করেছে, কাতারের নিয়ম ও আইনের বিপরীতে হলেও তারা নিজ বাহুতে এলজিবিটি (সমকামী) সম্প্রদায়ের সমর্থনে রংধনু পতাকা পরবেন।

তবে তারচেয়ে বড় খবর, ডুয়া লিপা ও শারিকা উভয়ই কাতার বিশ্বকাপের উদ্বোধনী মঞ্চ মাতানোর প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন। করেছেন কড়া সমালোচনাও। এরজন্য বিশ্বকাপের দূত কাহলিদ সালমানকে শুধুমাত্র খেলোয়াড়দের সাথেই আলোচনা করতে হয়নি, শিল্পীদের সাথেও সমঝোতায় হয়েছে টানা।

এবারের বিশ্বকাপে ‘না’ বলা জনপ্রিয় শিল্পীদের একজন হলেন ব্রিটিশ পপ সেনসেশন ডুয়া লিপা। যিনি ব্যাখ্যা করেছেন এভাবে, ‘আমি কখনোই এই আসরে পারফর্ম করার জন্য আলোচনার পর্যায়ে পৌঁছাইনি। কারণ এ বিষয়ে আমার সিদ্ধান্ত শুরু থেকেই নেওয়া হয়েছিল।’

আরও বলেন, ‘আমি দূর থেকে এবার ইংল্যান্ড টিমকে উৎসাহ যোগাবো। আমি সেদিন কাতার সফরে যাওয়ার জন্য উন্মুখ হবো, যেদিন শুনবো দেশটি মানবাধিকার বিষয়ে সকল প্রতিশ্রুতি পূরণ করছে।’

এদিকে কয়েক মাস ধরে সবার ঠোঁটে থাকা আরেক শিল্পীর নাম শাকিরা। সংবাদ মাধ্যমে শাকিরার মুখপাত্র বলেছে, ‘এটা নিশ্চিত যে, শাকিরা কাতার বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পারফর্ম করবেন না। তবে বিশ্বকাপের অন্য কোনও অংশে, অন্য কোনও ভূমিকায় তাকে দেখা যাবে কিনা সেটা এখনও বলা যাচ্ছে না।’

কাতার বিশ্বকাপের অবকাঠামো নির্মাণে নিযুক্ত অনেক শ্রমিক মারা গেছেন বলে অভিযোগ। শাকিরা মানবাধিকার লঙ্ঘনের প্রতিবাদ করেন। এছাড়া সমকামীদের অধিকার এবং মানুষের পোশাক স্বাধীনতা নিয়েও শাকিরার অভিযোগ রয়েছে দেশটির বিরুদ্ধে। কারণ স্বাগতিক দেশ কাতারের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয় যে, এবারের বিশ্বকাপ দেখতে আসা বা পারফরম্যান্স করা সকলেই দেশটির নিয়ম মানতে হবে! পুরো শরীর কাপড়ে আবৃত রাখতে হবে। কাতারের এসব নিয়মকে ‘সম্মানহীন’ বলে উল্লেখ করেন ডুয়া লিপা ও শাকিরা।

এ কারণেই হয়তো এবার আর বিশ্বকাপ ফুটবলের উদ্বোধনী মঞ্চে পারফর্ম করছেন না শাকিরা। যিনি এর আগে ২০০৬, ২০১০ ও ২০১৪ সালের ফিফা আসর মাতিয়েছিলেন নাচে ও গানে।

এদিকে ব্রিটিশ কিংবদন্তি সংগীতশিল্পী রড স্টুয়ার্টেরও পারফর্ম করার কথা ছিলো কাতার মঞ্চে। কিন্তু গায়ক সম্প্রতি ব্যাখ্যা করেছেন যে, কেন তিনি এমন লাভজনক প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছিলেন।

তার ভাষ্যে, ‘তারা (কাতার কর্তৃপক্ষ) আমাকে পারফরম্যান্সের জন্য এক মিলিয়ন ডলারেরও বেশি অর্থের প্রস্তাব করেছিল, কিন্তু আমি তা প্রত্যাখ্যান করেছি। কারণ আমি মনে করি না যে, এমন ধারণা এবং মূল্যবোধের দেশে যাওয়া ঠিক হবে। আমি মনে করি ইরানিদেরও থামানো উচিত।’

এবারের উদ্বোধনী মঞ্চে পারফর্ম করার বিষয়ে যে শিল্পীরা কাতারকে হ্যাঁ বলেছেন তারা হলেন: জে. বালভিন, রবি উইলিয়ামস, জেসন ডেরুলো, ক্লিন ব্যান্ডিট, শন পল, নোরা ফাতেহি, ব্ল্যাক আইড পিস, বিটিএসের জাংকুক এবং নিকি মিনাজ, মালুমা ও মারিয়াম ফারেস। শেষের তিনজন কাতার বিশ্বকাপের জন্য অফিসিয়াল গান তৈরির দায়িত্বে রয়েছেন।

বিজনেস বাংলাদেশ/ হাবিব

কাতার বিশ্বকাপ বয়কটের কারণ…

প্রকাশিত : ১২:০২:৫৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৮ নভেম্বর ২০২২

এবার বিশ্বকাপ ফুটবল আসর এবার বসছে কাতারের মাটিতে। এরজন্য শুরু থেকেই আয়োজক প্রতিষ্ঠান ফিফার বিরুদ্ধে অসন্তোষ প্রকাশ করে আসছিলো বিশ্বের নানা তারকা এবং বিভিন্ন মানবাধিকার প্রতিষ্ঠান। প্রায় সবার অভিযোগ এমন- ফিফা মানবাধিকারের চেয়ে আর্থিক লাভটা বেশি দেখেছে এবারের আয়োজনের মাধ্যমে।

তবে শেষ বেলায় উদ্বোধনী চমকের আগমুহূর্তে শিল্পীদের পক্ষ থেকে যে এভাবে বিস্ফোরণ ঘটবে, সেটি সম্ভবত কেউ ধারণা করেনি।

জমকালো উদ্বোধনী আসরের দু’দিন আগে দুটো বড় বিস্ফোরক মন্তব্য ছুঁড়ে দিলেন ব্রিটিশ তারকা তারকা ডুয়া লিপা এবং কলোম্বিয়ান তারকা শাকিরা। তাই নয়, কিছু খেলোয়াড়ও ঘোষণা করেছে, কাতারের নিয়ম ও আইনের বিপরীতে হলেও তারা নিজ বাহুতে এলজিবিটি (সমকামী) সম্প্রদায়ের সমর্থনে রংধনু পতাকা পরবেন।

তবে তারচেয়ে বড় খবর, ডুয়া লিপা ও শারিকা উভয়ই কাতার বিশ্বকাপের উদ্বোধনী মঞ্চ মাতানোর প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন। করেছেন কড়া সমালোচনাও। এরজন্য বিশ্বকাপের দূত কাহলিদ সালমানকে শুধুমাত্র খেলোয়াড়দের সাথেই আলোচনা করতে হয়নি, শিল্পীদের সাথেও সমঝোতায় হয়েছে টানা।

এবারের বিশ্বকাপে ‘না’ বলা জনপ্রিয় শিল্পীদের একজন হলেন ব্রিটিশ পপ সেনসেশন ডুয়া লিপা। যিনি ব্যাখ্যা করেছেন এভাবে, ‘আমি কখনোই এই আসরে পারফর্ম করার জন্য আলোচনার পর্যায়ে পৌঁছাইনি। কারণ এ বিষয়ে আমার সিদ্ধান্ত শুরু থেকেই নেওয়া হয়েছিল।’

আরও বলেন, ‘আমি দূর থেকে এবার ইংল্যান্ড টিমকে উৎসাহ যোগাবো। আমি সেদিন কাতার সফরে যাওয়ার জন্য উন্মুখ হবো, যেদিন শুনবো দেশটি মানবাধিকার বিষয়ে সকল প্রতিশ্রুতি পূরণ করছে।’

এদিকে কয়েক মাস ধরে সবার ঠোঁটে থাকা আরেক শিল্পীর নাম শাকিরা। সংবাদ মাধ্যমে শাকিরার মুখপাত্র বলেছে, ‘এটা নিশ্চিত যে, শাকিরা কাতার বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পারফর্ম করবেন না। তবে বিশ্বকাপের অন্য কোনও অংশে, অন্য কোনও ভূমিকায় তাকে দেখা যাবে কিনা সেটা এখনও বলা যাচ্ছে না।’

কাতার বিশ্বকাপের অবকাঠামো নির্মাণে নিযুক্ত অনেক শ্রমিক মারা গেছেন বলে অভিযোগ। শাকিরা মানবাধিকার লঙ্ঘনের প্রতিবাদ করেন। এছাড়া সমকামীদের অধিকার এবং মানুষের পোশাক স্বাধীনতা নিয়েও শাকিরার অভিযোগ রয়েছে দেশটির বিরুদ্ধে। কারণ স্বাগতিক দেশ কাতারের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয় যে, এবারের বিশ্বকাপ দেখতে আসা বা পারফরম্যান্স করা সকলেই দেশটির নিয়ম মানতে হবে! পুরো শরীর কাপড়ে আবৃত রাখতে হবে। কাতারের এসব নিয়মকে ‘সম্মানহীন’ বলে উল্লেখ করেন ডুয়া লিপা ও শাকিরা।

এ কারণেই হয়তো এবার আর বিশ্বকাপ ফুটবলের উদ্বোধনী মঞ্চে পারফর্ম করছেন না শাকিরা। যিনি এর আগে ২০০৬, ২০১০ ও ২০১৪ সালের ফিফা আসর মাতিয়েছিলেন নাচে ও গানে।

এদিকে ব্রিটিশ কিংবদন্তি সংগীতশিল্পী রড স্টুয়ার্টেরও পারফর্ম করার কথা ছিলো কাতার মঞ্চে। কিন্তু গায়ক সম্প্রতি ব্যাখ্যা করেছেন যে, কেন তিনি এমন লাভজনক প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছিলেন।

তার ভাষ্যে, ‘তারা (কাতার কর্তৃপক্ষ) আমাকে পারফরম্যান্সের জন্য এক মিলিয়ন ডলারেরও বেশি অর্থের প্রস্তাব করেছিল, কিন্তু আমি তা প্রত্যাখ্যান করেছি। কারণ আমি মনে করি না যে, এমন ধারণা এবং মূল্যবোধের দেশে যাওয়া ঠিক হবে। আমি মনে করি ইরানিদেরও থামানো উচিত।’

এবারের উদ্বোধনী মঞ্চে পারফর্ম করার বিষয়ে যে শিল্পীরা কাতারকে হ্যাঁ বলেছেন তারা হলেন: জে. বালভিন, রবি উইলিয়ামস, জেসন ডেরুলো, ক্লিন ব্যান্ডিট, শন পল, নোরা ফাতেহি, ব্ল্যাক আইড পিস, বিটিএসের জাংকুক এবং নিকি মিনাজ, মালুমা ও মারিয়াম ফারেস। শেষের তিনজন কাতার বিশ্বকাপের জন্য অফিসিয়াল গান তৈরির দায়িত্বে রয়েছেন।

বিজনেস বাংলাদেশ/ হাবিব