০১:৩৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪

পর্যটন নগরীতে বিআরটিসির দোতলা সিটি বাস সার্ভিস

কক্সবাজার আইকনিক রেলস্টেশন থেকে শহরের শহীদ স্মরণী মোড় অর্থাৎ ঘুন গাছতলা পর্যন্ত নিয়মিত চলাচল করবে দোতলা বাসগুলো। ২২ ডিসেম্বর (শুক্রবার) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে কক্সবাজার আইকনিক রেলস্টেশনে এ বাসের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়।

দোতলা বাসগুলোর প্রতিটি বাসে ৭৫টি করে আসন রয়েছে। রেলস্টেশন থেকে ডলফিন মোড় পর্যন্ত জনপ্রতি ভাড়া পড়বে ১৫ টাকা, সুগন্ধা মোড় ২০, লাবনী মোড় ২৫, হলিডে মোড় ৩০ টাকা ও ঘুন গাছতলা ৩৫ টাকা।

প্রথম দিনেই যাত্রীতে ভরা ছিলো বাসগুলো। যাত্রীরা বলছেন, সরকারি এমন সেবার মাধ্যমে অটোচালকদের দৌরাত্ম কমবে।

যাত্রীরা জানান, রেলস্টেশন থেকে ডলফিন মোড়ে যেতে চাইলে অটোওয়ালা ১৫০ থেকে ২০০ টাকা ভাড়া চেয়ে বসেন, যা খুবই ব্যয়বহুল। বিআরটিসির এই সার্ভিস খুব ভালো উদ্যোগ। আমরা এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানাই।

কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (পর্যটন সেল) মোহাম্মদ মাসুদ রানা বলেন, ট্রেনের যাত্রীদের যাতে কোনো অসুবিধা না হয় সেকারণেই এ সার্ভিসটি চালু করা হয়েছে। অল্প কিছু টাকায় পর্যটকরা কক্সবাজার শহরে যাতায়াত করতে পারবেন। এছাড়া কক্সবাজারের মেরিন ড্রাইভ সড়কেও বিআরটিসির ছাদখোলা বাস সার্ভিস চালু হচ্ছে।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ইয়ামিন হোসেন বলেন, প্রথম দিকে দুটো বাস দিয়ে চালু করা হচ্ছে এই সিটি সার্ভিস। যেহেতু প্রতিদিন সকাল ৭টা ২০ মিনিটে ট্রেন আসে, তার সঙ্গে সঙ্গতি রেখেই কক্সবাজারে সকাল সাড়ে ৭টায় রেলস্টেশন থেকে এই দোতলা বাসগুলো ছাড়বে।

বিজনেস বাংলাদেশ/একে

মেঘনা ধনাগোদা সেচ প্রকল্প বেড়ীবাঁধ সড়কে আবারও ছোট বড় গর্তের সৃষ্টি

পর্যটন নগরীতে বিআরটিসির দোতলা সিটি বাস সার্ভিস

প্রকাশিত : ০২:৫৫:২৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৩ ডিসেম্বর ২০২৩

কক্সবাজার আইকনিক রেলস্টেশন থেকে শহরের শহীদ স্মরণী মোড় অর্থাৎ ঘুন গাছতলা পর্যন্ত নিয়মিত চলাচল করবে দোতলা বাসগুলো। ২২ ডিসেম্বর (শুক্রবার) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে কক্সবাজার আইকনিক রেলস্টেশনে এ বাসের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়।

দোতলা বাসগুলোর প্রতিটি বাসে ৭৫টি করে আসন রয়েছে। রেলস্টেশন থেকে ডলফিন মোড় পর্যন্ত জনপ্রতি ভাড়া পড়বে ১৫ টাকা, সুগন্ধা মোড় ২০, লাবনী মোড় ২৫, হলিডে মোড় ৩০ টাকা ও ঘুন গাছতলা ৩৫ টাকা।

প্রথম দিনেই যাত্রীতে ভরা ছিলো বাসগুলো। যাত্রীরা বলছেন, সরকারি এমন সেবার মাধ্যমে অটোচালকদের দৌরাত্ম কমবে।

যাত্রীরা জানান, রেলস্টেশন থেকে ডলফিন মোড়ে যেতে চাইলে অটোওয়ালা ১৫০ থেকে ২০০ টাকা ভাড়া চেয়ে বসেন, যা খুবই ব্যয়বহুল। বিআরটিসির এই সার্ভিস খুব ভালো উদ্যোগ। আমরা এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানাই।

কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (পর্যটন সেল) মোহাম্মদ মাসুদ রানা বলেন, ট্রেনের যাত্রীদের যাতে কোনো অসুবিধা না হয় সেকারণেই এ সার্ভিসটি চালু করা হয়েছে। অল্প কিছু টাকায় পর্যটকরা কক্সবাজার শহরে যাতায়াত করতে পারবেন। এছাড়া কক্সবাজারের মেরিন ড্রাইভ সড়কেও বিআরটিসির ছাদখোলা বাস সার্ভিস চালু হচ্ছে।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ইয়ামিন হোসেন বলেন, প্রথম দিকে দুটো বাস দিয়ে চালু করা হচ্ছে এই সিটি সার্ভিস। যেহেতু প্রতিদিন সকাল ৭টা ২০ মিনিটে ট্রেন আসে, তার সঙ্গে সঙ্গতি রেখেই কক্সবাজারে সকাল সাড়ে ৭টায় রেলস্টেশন থেকে এই দোতলা বাসগুলো ছাড়বে।

বিজনেস বাংলাদেশ/একে