০২:৩৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪

আপিল বিভাগে ছাদ থেকে পড়ল পানি, ১৮ মিনিট বন্ধ থাকল বিচারকাজ

ফাইল ছবি

দেশের সব্বোর্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে বিচারকাজ পরিচালনার সময় ছাদ থেকে বিচারকদের আসনে পানি পড়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে প্রধান বিচারপতিসহ ৫ বিচারপতি এজলাস ছেড়ে খাস কামরায় চলে যান। পরে ১৮ মিনিটের জন্য বন্ধ হয়ে যায় বিচারকাজ।

এরপর রেজিস্টার জেনারেলসহ সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনের কর্মকর্তারা ছুটে যান সেখানে। তড়িৎ গতিতে ঝুঁকিপূর্ণ জায়গা থেকে সরিয়ে ফেলা হয় বিচারকদের আসন। ১৮ মিনিট পর সকাল ১০টা ২ মিনিটে আবার বিচারকাজ শুরু হয়।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) সকাল ৯টা ৪০ মিনিটে আপিল বিভাগে এজলাসে আসন গ্রহণ করেন বিচারপতিরা।

সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলেন, বিচারকাজের শুরু থেকেই বিচারকদের ডানপাশে বসা বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিমের আসনে ছাদ থেকে ফোঁটায় ফোঁটায় পানি পড়ছিল। তিনি বিষয়টি তার বেঞ্চ অফিসারকে জানান। এক পর্যায়ে পানির পড়ার ঘটনা প্রধান বিচারপতির নজরে আসে। পরে ৯টা ৪৪ মিনিটে প্রধান বিচারপতিসহ ৫ বিচারপতি এজলাস ছেড়ে খাস কামরায় চলে যান।

এরপর এজলাস কক্ষে ছুটে আসেন সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনের কর্মকর্তারা। ঝুঁকিপূর্ণ জায়গা থেকে বিচারকদের আসন ছড়িয়ে ফেলা হয়। তারপর ১০টা ২ মিনিটে পুনরায় আপিল বিভাগে আসন গ্রহণ করেন বিচারপতিরা। শুরু হয় বিচারকাজ।

দ্বিতীয় দফায় বিচারকাজ শুরু হওয়ার পর অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন প্রধান বিচারপতির দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, ছাদটি ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় আছে ইঞ্জিনিয়ার দিয়ে ভালো করে দেখানো উচিত।

এতে সহমত পোষণ করে প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান বলেন, ছাদের অবস্থা ঝুঁকিপূর্ণ, আজকে থেকে ইঞ্জিনিয়াররা কাজ শুরু করবে। এ ব্যাপারে অ্যাটর্নি জেনারেলকেও সহযোগিতা করার জন্য বলেন তিনি।

এর আগেও আপিল বিভাগের এজলাস কক্ষে ছাদ থেকে পানি, পলেস্তরা পড়ার ঘটনা ঘটেছে।

বিজনেস বাংলাদেশ/একে

জনপ্রিয়

ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে কর্মসংস্থান ব্যাংকের নবনিযুক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালকের শ্রদ্ধা জ্ঞাপন

আপিল বিভাগে ছাদ থেকে পড়ল পানি, ১৮ মিনিট বন্ধ থাকল বিচারকাজ

প্রকাশিত : ১১:০৫:০৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০২৪

দেশের সব্বোর্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে বিচারকাজ পরিচালনার সময় ছাদ থেকে বিচারকদের আসনে পানি পড়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে প্রধান বিচারপতিসহ ৫ বিচারপতি এজলাস ছেড়ে খাস কামরায় চলে যান। পরে ১৮ মিনিটের জন্য বন্ধ হয়ে যায় বিচারকাজ।

এরপর রেজিস্টার জেনারেলসহ সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনের কর্মকর্তারা ছুটে যান সেখানে। তড়িৎ গতিতে ঝুঁকিপূর্ণ জায়গা থেকে সরিয়ে ফেলা হয় বিচারকদের আসন। ১৮ মিনিট পর সকাল ১০টা ২ মিনিটে আবার বিচারকাজ শুরু হয়।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) সকাল ৯টা ৪০ মিনিটে আপিল বিভাগে এজলাসে আসন গ্রহণ করেন বিচারপতিরা।

সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলেন, বিচারকাজের শুরু থেকেই বিচারকদের ডানপাশে বসা বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিমের আসনে ছাদ থেকে ফোঁটায় ফোঁটায় পানি পড়ছিল। তিনি বিষয়টি তার বেঞ্চ অফিসারকে জানান। এক পর্যায়ে পানির পড়ার ঘটনা প্রধান বিচারপতির নজরে আসে। পরে ৯টা ৪৪ মিনিটে প্রধান বিচারপতিসহ ৫ বিচারপতি এজলাস ছেড়ে খাস কামরায় চলে যান।

এরপর এজলাস কক্ষে ছুটে আসেন সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনের কর্মকর্তারা। ঝুঁকিপূর্ণ জায়গা থেকে বিচারকদের আসন ছড়িয়ে ফেলা হয়। তারপর ১০টা ২ মিনিটে পুনরায় আপিল বিভাগে আসন গ্রহণ করেন বিচারপতিরা। শুরু হয় বিচারকাজ।

দ্বিতীয় দফায় বিচারকাজ শুরু হওয়ার পর অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন প্রধান বিচারপতির দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, ছাদটি ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় আছে ইঞ্জিনিয়ার দিয়ে ভালো করে দেখানো উচিত।

এতে সহমত পোষণ করে প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান বলেন, ছাদের অবস্থা ঝুঁকিপূর্ণ, আজকে থেকে ইঞ্জিনিয়াররা কাজ শুরু করবে। এ ব্যাপারে অ্যাটর্নি জেনারেলকেও সহযোগিতা করার জন্য বলেন তিনি।

এর আগেও আপিল বিভাগের এজলাস কক্ষে ছাদ থেকে পানি, পলেস্তরা পড়ার ঘটনা ঘটেছে।

বিজনেস বাংলাদেশ/একে