০৮:০৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪

নবীনগরকে ‘মডেল উপজেলা’ হিসেবে গড়ে তোলার অঙ্গীকার

শিক্ষা- সংস্কৃতির খ্যাত ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলাকে সারাদেশের মধ্যে একটি ‘মডেল ও সর্বাধুনিক উপজেলা’ হিসেবে গড়ে তোলার অঙ্গীকার করলেন উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতাকারী চারজন প্রার্থী।

চার প্রার্থী হলেন দুই উপজেলা চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী স্থানীয় বিএনপির উপদেষ্টা পদ থেকে সদ্য বহিস্কৃত নেতা, বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও ব্যবসায়ী ‘আনারস’ প্রতীকের মো. ফারুক আহাম্মদ ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা ‘কই মাছ’ প্রতীক নিয়ে পদপ্রার্থী হওয়া কাজী জহির উদ্দিন ছিদ্দিক টিটু সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়ে অংশ নেয়া দুই উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হলেন নবীনগর পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক, নবীনগর সরকারি কলেজের সাবেক জিএস, সাবেক ছাত্রনেতা ‘মাইক’ প্রতীকে নির্বাচনে অংশ নেয়া হাজী খাইরুল আমীন ও ইসলামী ঐক্যজোটের কেন্ত্রীয় নেতা হেফাজতে ইসলামের স্থানীয় সহসভাপতি ‘চশমা’ প্রতীকে ভোটের মাঠে অবতীর্ণ হওয়া মাওলানা মেহেদী হাসান।


আগামী ৫ জুন চতুর্থ ধাপে নবীনগর উপজেলায় অনুষ্ঠেয় উপজেলা নির্বাচনকে সামনে রেখে এই চারজন প্রার্থী পৃথক পৃথকভাবে গতকাল ২৫ মে ও আজ রোববার নবীনগরে “মিট দ্যা প্রেস” এ স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে নির্বাচনের সামগ্রিক বিষয় নিয়ে খোলামেলা মতবিনিময় করেন।

আলাদা আলাদা এসব মতবিনিময় সভায় স্থানীয় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে চার প্রার্থীই দৃঢ়তার সাথে বলেন,’আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তাঁরা বিজয়ী হতে পারলে, নবীনগর উপজেলাকে সারাদেশের মধ্যে একটি ‘মডেল ও অত্যাধুনিক উপজেলা’ হিসেবে গড়ে তুলবেন।’

তবে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে চার প্রার্থীই নির্বাচনটি সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও অবাধ হবে বলে দৃঢ়ভাবে মত প্রকাশ করেছেন। এক্ষেত্রে চার প্রার্থীই নবীনগরের বর্তমান সাংসদ ফয়জুর রহমান বাদলের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন,’আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, মাননীয় এমপি ফয়জুর রহমান বাদলের আমলে অতীতের মতো এবারও আগামি ৫ জুনের উপজেলা নির্বাচনটিও শতভাগ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে সম্পন্ন হবে। কারণ, বাদল এমপির সততা, দৃঢ়তা, ন্যায়পরায়ণতা ও গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে দলমত নির্বিশেষে গোটা উপজেলায় কারও কোন দ্বিমত কিংবা সন্দেহ আছে বলে আমরা মনে করি না। সুতরাং আগামি ৫ জুন একটি সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে যারাই বিজয়ী হবেন, আমরা সবাই তাঁদেরকে মেনে নেবো।”

সাংবাদিকদের অপর এক প্রশ্নের জবাবে এই চারপ্রার্থীই পৃথক পৃথক ভাবে অনুষ্ঠিত চারটি মতবিনিময় সভায় দৃঢ়তার সাথে বলেন,’আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে নির্বাচিত হতে পারলে, নবীনগরের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নসহ এই উপজেলার সামগ্রিক উন্নয়নে আমরা বর্তমান এমপি বাদল ভাইয়ের সাথে একত্রিত হয়ে কাজ করবো। পাশাপাশি বহুধাবিভক্ত নবীনগরের সাংবাদিক সমাজকে ‘একীভূত’ করে সাংবাদিকদের নানা সমস্যা সমাধানেও সর্বোচ্চ পদক্ষেপ গ্রহণ করবো।

‘মিট দ্য প্রেস’ এ অংশ নেয়া পৃথক চারটি অনুষ্ঠানে স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে প্রার্থীদের সাথে আসা উপজেলার বিভিন্ন নেতৃবৃন্দও উপস্থিত ছিলেন।

বিজনেস বাংলাদেশ/BH

ট্যাগ :
জনপ্রিয়

বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক দ্রুত অগ্রসর হচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী

নবীনগরকে ‘মডেল উপজেলা’ হিসেবে গড়ে তোলার অঙ্গীকার

প্রকাশিত : ০৬:১১:১৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪

শিক্ষা- সংস্কৃতির খ্যাত ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলাকে সারাদেশের মধ্যে একটি ‘মডেল ও সর্বাধুনিক উপজেলা’ হিসেবে গড়ে তোলার অঙ্গীকার করলেন উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতাকারী চারজন প্রার্থী।

চার প্রার্থী হলেন দুই উপজেলা চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী স্থানীয় বিএনপির উপদেষ্টা পদ থেকে সদ্য বহিস্কৃত নেতা, বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও ব্যবসায়ী ‘আনারস’ প্রতীকের মো. ফারুক আহাম্মদ ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা ‘কই মাছ’ প্রতীক নিয়ে পদপ্রার্থী হওয়া কাজী জহির উদ্দিন ছিদ্দিক টিটু সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়ে অংশ নেয়া দুই উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হলেন নবীনগর পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক, নবীনগর সরকারি কলেজের সাবেক জিএস, সাবেক ছাত্রনেতা ‘মাইক’ প্রতীকে নির্বাচনে অংশ নেয়া হাজী খাইরুল আমীন ও ইসলামী ঐক্যজোটের কেন্ত্রীয় নেতা হেফাজতে ইসলামের স্থানীয় সহসভাপতি ‘চশমা’ প্রতীকে ভোটের মাঠে অবতীর্ণ হওয়া মাওলানা মেহেদী হাসান।


আগামী ৫ জুন চতুর্থ ধাপে নবীনগর উপজেলায় অনুষ্ঠেয় উপজেলা নির্বাচনকে সামনে রেখে এই চারজন প্রার্থী পৃথক পৃথকভাবে গতকাল ২৫ মে ও আজ রোববার নবীনগরে “মিট দ্যা প্রেস” এ স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে নির্বাচনের সামগ্রিক বিষয় নিয়ে খোলামেলা মতবিনিময় করেন।

আলাদা আলাদা এসব মতবিনিময় সভায় স্থানীয় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে চার প্রার্থীই দৃঢ়তার সাথে বলেন,’আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তাঁরা বিজয়ী হতে পারলে, নবীনগর উপজেলাকে সারাদেশের মধ্যে একটি ‘মডেল ও অত্যাধুনিক উপজেলা’ হিসেবে গড়ে তুলবেন।’

তবে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে চার প্রার্থীই নির্বাচনটি সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও অবাধ হবে বলে দৃঢ়ভাবে মত প্রকাশ করেছেন। এক্ষেত্রে চার প্রার্থীই নবীনগরের বর্তমান সাংসদ ফয়জুর রহমান বাদলের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন,’আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, মাননীয় এমপি ফয়জুর রহমান বাদলের আমলে অতীতের মতো এবারও আগামি ৫ জুনের উপজেলা নির্বাচনটিও শতভাগ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে সম্পন্ন হবে। কারণ, বাদল এমপির সততা, দৃঢ়তা, ন্যায়পরায়ণতা ও গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে দলমত নির্বিশেষে গোটা উপজেলায় কারও কোন দ্বিমত কিংবা সন্দেহ আছে বলে আমরা মনে করি না। সুতরাং আগামি ৫ জুন একটি সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে যারাই বিজয়ী হবেন, আমরা সবাই তাঁদেরকে মেনে নেবো।”

সাংবাদিকদের অপর এক প্রশ্নের জবাবে এই চারপ্রার্থীই পৃথক পৃথক ভাবে অনুষ্ঠিত চারটি মতবিনিময় সভায় দৃঢ়তার সাথে বলেন,’আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে নির্বাচিত হতে পারলে, নবীনগরের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নসহ এই উপজেলার সামগ্রিক উন্নয়নে আমরা বর্তমান এমপি বাদল ভাইয়ের সাথে একত্রিত হয়ে কাজ করবো। পাশাপাশি বহুধাবিভক্ত নবীনগরের সাংবাদিক সমাজকে ‘একীভূত’ করে সাংবাদিকদের নানা সমস্যা সমাধানেও সর্বোচ্চ পদক্ষেপ গ্রহণ করবো।

‘মিট দ্য প্রেস’ এ অংশ নেয়া পৃথক চারটি অনুষ্ঠানে স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে প্রার্থীদের সাথে আসা উপজেলার বিভিন্ন নেতৃবৃন্দও উপস্থিত ছিলেন।

বিজনেস বাংলাদেশ/BH