১২:৩৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪

হার দিয়ে বিশ্বকাপ প্রস্তুতি শেষ হলো পাকিস্তানের

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রস্তুতি নিতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে চার ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলেছে পাকিস্তান। তবে প্রস্তুতিটা মোটেও ভালো হয় বাবরদের। কারণ, ইংলিশদের কাছে ২-০ ব্যবধানে সিরিজ হেরে দ্য গ্রিন ম্যানরা। সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে পাকিস্তানকে ৭ উইকেটে বিধ্বস্ত করেছে জস বাটলারের দল।

বৃহস্পতিবার (৩০ মে) আগে ব্যাট করতে নেমে ১৫৭ রানে অলআউট হয় পাকিস্তান। জবাব দিতে নেমে ২৭ বলে এবং ৭ উইকেট হাতে থাকতেই জয় তুলে নেয় ইংলিশরা। এতে হার দিয়ে বিশ্বকাপ প্রস্তুতি শেষ হলো পাকিস্তানের।

সহজ লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে পাকিস্তানের চার পেসারের ওপর চড়াও হন দুই ইংলিশ ওপেনার জস বাটলার ও ফিল সল্ট। ২৪ বলে ৪৫ রান করেন সল্ট। এছাড়া বাটলার ৩৯ ও জনি বেয়ারস্টো খেলেন ২৮ রানের ইনিংস। এরপর ২৭ বল হাতে রেখেই জয় পায় স্বাগতিকরা।

পাকিস্তানের হয়ে তিন উইকেটের সবকটিই নেন হারিস রউফ।

এর আগে টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালোই হয়েছিল পাকিস্তানের। পাওয়ার প্লে শেষ হতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ের মুখে পড়ে তারা। এরপর আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি। ইনিংসের এক বল বাকি থাকতেই গুটিয়ে যায় ১৫৭ রানে। দলটির হয়ে ২১ বলে সর্বোচ্চ ৩৮ রান করেন উসমান খান।

এছাড়া অধিনায়ক বাবর আজমের ব্যাট থেকে আসে ৩৬ রান। যার ফলে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে বিরাট কোহলির পর দ্বিতীয় ব্যাটার হিসেবে ৪ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন এই ব্যাটার।

ইংল্যান্ডের হয়ে দুটি করে উইকেট নেন মার্ক উড, আদিল রশিদ ও লিয়াম লিভিংস্টোন। ম্যাচসেরা হয়েছেন রশিদ।

বিজনেস বাংলাদেশ/একে

জনপ্রিয়

হার দিয়ে বিশ্বকাপ প্রস্তুতি শেষ হলো পাকিস্তানের

প্রকাশিত : ০৩:৫৪:৩৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রস্তুতি নিতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে চার ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলেছে পাকিস্তান। তবে প্রস্তুতিটা মোটেও ভালো হয় বাবরদের। কারণ, ইংলিশদের কাছে ২-০ ব্যবধানে সিরিজ হেরে দ্য গ্রিন ম্যানরা। সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে পাকিস্তানকে ৭ উইকেটে বিধ্বস্ত করেছে জস বাটলারের দল।

বৃহস্পতিবার (৩০ মে) আগে ব্যাট করতে নেমে ১৫৭ রানে অলআউট হয় পাকিস্তান। জবাব দিতে নেমে ২৭ বলে এবং ৭ উইকেট হাতে থাকতেই জয় তুলে নেয় ইংলিশরা। এতে হার দিয়ে বিশ্বকাপ প্রস্তুতি শেষ হলো পাকিস্তানের।

সহজ লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে পাকিস্তানের চার পেসারের ওপর চড়াও হন দুই ইংলিশ ওপেনার জস বাটলার ও ফিল সল্ট। ২৪ বলে ৪৫ রান করেন সল্ট। এছাড়া বাটলার ৩৯ ও জনি বেয়ারস্টো খেলেন ২৮ রানের ইনিংস। এরপর ২৭ বল হাতে রেখেই জয় পায় স্বাগতিকরা।

পাকিস্তানের হয়ে তিন উইকেটের সবকটিই নেন হারিস রউফ।

এর আগে টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালোই হয়েছিল পাকিস্তানের। পাওয়ার প্লে শেষ হতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ের মুখে পড়ে তারা। এরপর আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি। ইনিংসের এক বল বাকি থাকতেই গুটিয়ে যায় ১৫৭ রানে। দলটির হয়ে ২১ বলে সর্বোচ্চ ৩৮ রান করেন উসমান খান।

এছাড়া অধিনায়ক বাবর আজমের ব্যাট থেকে আসে ৩৬ রান। যার ফলে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে বিরাট কোহলির পর দ্বিতীয় ব্যাটার হিসেবে ৪ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন এই ব্যাটার।

ইংল্যান্ডের হয়ে দুটি করে উইকেট নেন মার্ক উড, আদিল রশিদ ও লিয়াম লিভিংস্টোন। ম্যাচসেরা হয়েছেন রশিদ।

বিজনেস বাংলাদেশ/একে