১০:৪৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪

সরকারের সমালোচনা করায় ২০ বছরের কারাদণ্ড সৌদি শিক্ষকের

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্টের জেরে বিপাকে পড়লেন সৌদির এক শিক্ষক। সমালোচনামূলক পোস্ট করার তাকে ২০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন দেশটির আদালত।

মঙ্গলবার মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ) এবং দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তির ভাই এ খবর জানান। পোস্টকারী ব্যক্তির নাম আসাদ আল–ঘামদি।

৪৭ বছর বয়সি শিক্ষক আসাদের বাড়ি সৌদি আরবের জেদ্দায়। সরকারের সমালোচক হিসাবে পরিচিত তিনি। ২০২২ সালের নভেম্বরে এক রাতে তার বাড়িতে তল্লাশি চালায় পুলিশ। ওই সময় তাকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানায় নিউইয়র্কভিত্তিক এইচআরডব্লিউ।

সৌদি আরবের বিশেষায়িত অপরাধ আদালতে গত ২৯ মে দোষী সাব্যস্ত করা হয় আসাদকে। এইচআরডব্লিউ বলেছে, সন্দেহভাজন সন্ত্রাসবাদীদের বিচারে ২০০৮ সালে এ আদালত প্রতিষ্ঠা করা হয়। সংস্থাটি জানিয়েছে, যেসব পোস্টের কারণে আসাদকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে, সেসবের মধ্যে সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের উচ্চাভিলাষী ‘ভিশন ২০৩০’ সংস্কার প্রকল্প নিয়ে পোস্টও রয়েছে।

সৌদি আরবের অন্যতম প্রভাবশালী মানবাধিকার কর্মী আবদুল্লাহ আল–হামিদকে স্মরণ করেও একটি পোস্ট দিয়েছিলেন আসাদ। দেশটির কারাগারে বন্দী অবস্থায় মারা যান আল–হামিদ। এ পোস্টের বিষয়বস্তুও আদালতের আমলে আনা হয়। এছাড়াও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের কর্মকাণ্ডের জেরে গত বছর আসাদের ভাই মোহাম্মদকে মৃত্যুদণ্ড দেন সৌদি আরবের একটি আদালত।

সরকারের সমালোচনা করায় ২০ বছরের কারাদণ্ড সৌদি শিক্ষকের

প্রকাশিত : ০১:২৮:৩২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ জুলাই ২০২৪

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্টের জেরে বিপাকে পড়লেন সৌদির এক শিক্ষক। সমালোচনামূলক পোস্ট করার তাকে ২০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন দেশটির আদালত।

মঙ্গলবার মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ) এবং দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তির ভাই এ খবর জানান। পোস্টকারী ব্যক্তির নাম আসাদ আল–ঘামদি।

৪৭ বছর বয়সি শিক্ষক আসাদের বাড়ি সৌদি আরবের জেদ্দায়। সরকারের সমালোচক হিসাবে পরিচিত তিনি। ২০২২ সালের নভেম্বরে এক রাতে তার বাড়িতে তল্লাশি চালায় পুলিশ। ওই সময় তাকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানায় নিউইয়র্কভিত্তিক এইচআরডব্লিউ।

সৌদি আরবের বিশেষায়িত অপরাধ আদালতে গত ২৯ মে দোষী সাব্যস্ত করা হয় আসাদকে। এইচআরডব্লিউ বলেছে, সন্দেহভাজন সন্ত্রাসবাদীদের বিচারে ২০০৮ সালে এ আদালত প্রতিষ্ঠা করা হয়। সংস্থাটি জানিয়েছে, যেসব পোস্টের কারণে আসাদকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে, সেসবের মধ্যে সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের উচ্চাভিলাষী ‘ভিশন ২০৩০’ সংস্কার প্রকল্প নিয়ে পোস্টও রয়েছে।

সৌদি আরবের অন্যতম প্রভাবশালী মানবাধিকার কর্মী আবদুল্লাহ আল–হামিদকে স্মরণ করেও একটি পোস্ট দিয়েছিলেন আসাদ। দেশটির কারাগারে বন্দী অবস্থায় মারা যান আল–হামিদ। এ পোস্টের বিষয়বস্তুও আদালতের আমলে আনা হয়। এছাড়াও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের কর্মকাণ্ডের জেরে গত বছর আসাদের ভাই মোহাম্মদকে মৃত্যুদণ্ড দেন সৌদি আরবের একটি আদালত।