ঢাকা সকাল ১০:২০, বুধবার, ৭ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২২শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

অসহায়  ১৬৯-এ আত্মসমর্পণ

দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে টেস্টের (২-০) পর ওয়ানডে সিরিজেও (৩-০) অসহায় আত্মসমর্পণ করলো বাংলাদেশ দল। মান বাঁচানোর তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে ২০০ রানের বিশাল ব্যবধানে হারের লজ্জায় ডুবেছে সফরকারীরা। প্রোটিয়াদের ছুঁড়ে দেওয়া ৩৭০ রানের চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৯.২ ওভার বাকি থাকতে সবকটি উইকেট হারিয়ে ১৬৯-এ থামে টাইগারদের ইনিংস।
এবার দু’দলের সামনে দুই ম্যাচের টি-২০ সিরিজ। আগামী ২৬ অক্টোবর (বৃহস্পতিবার) সংক্ষিপ্ত সংস্করণের প্রথম খেলা মাঠে গড়াবে। ব্লুমফন্টেইনের মানগাউং ওভালে ম্যাচ শুরু বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায়। তিনদিন পর (রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা) পচেফস্ট্রুমে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি শেষে দেশে ফিরবেন সাকিব-মুশফিকরা।
সর্বোচ্চ ৬৩ রান আসে সাকিব আল হাসানের ব্যাট থেকে। ইনিংসটা আরও বড় করতে পারতেন। আগের ওভারের শেষ বলে ক্যাচ তালুবন্দি করতে পারেননি এবি ডি ভিলিয়ার্স। নতুন জীবন পেয়ে পরের ওভারের (৩১তম) প্রথম বলেই আবারো শট খেলতে গিয়ে আউট হন। ডিপ মিড উইকেটে জেপি ডুমিনির হাতে ধরা পড়েন। সাকিবের উইকেটটি নিতে পারতেন ইমরান তাহির। সেটি নেন ওয়ানডে অভিষিক্ত আইদেন মার্করাম।
একই ওভারে কুইন্টন ডি ককের গ্লাভসবন্দি হয়ে মার্করামের দ্বিতীয় শিকার সাব্বির রহমান (৩৯)। দু’জনের বিদায়ে বাংলাদেশের ৩-০ তে সিরিজ হারটা ছিল সময়ের ব্যাপার মাত্র। ১৩৫ রানে সপ্তম উইকেটের পতন ঘটে। ৬১ রানে পাঁচ উইকেট হারানোর পর সাকিব-সাব্বিরের জুটিতে আসে ৬৭। মাশরাফি বিন মর্তুজা ১৭ ও শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে মেহেদি হাসান ১৫ রান করে আউট হন।
ছবি: সংগৃহীতবিশাল টার্গেটে নেমে ২০ রান তুলতেই টপঅর্ডারের তিনজনকে হারিয়ে চাপের মুখে পড়ে বাংলাদেশ। একে একে সাজঘরে ফেরেন ইমরুল কায়েস (১), লিটন দাস (৬) ও সৌম্য সরকার (৮)। ইনজুরির কারণে তামিম ইকবাল ছিটকে পড়ায় একাদশে ফিরে হতাশই করলেন সৌম্য।
আগের দুই ম্যাচে সেঞ্চুরি ও অর্ধশতকের পর মান বাঁচানোর ম্যাচে এসে ব্যর্থ মুশফিকুর রহিমের ব্যাট। চাপের মুখে সাকিবের সঙ্গে

এ বিভাগের আরও সংবাদ