ঢাকা দুপুর ২:৫২, শনিবার, ২৫শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রাত ৮টার পর দোকান বন্ধ চান মেয়র তাপস

জরুরি সেবা ছাড়া রাত ৮টার পর আর কোনো বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান খোলা থাকবে না বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটির মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস।

সোমবার (১৬ মে) দুপুরে মেয়রের দায়িত্ব পালনের দুই বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি। ঢাকা দক্ষিণ সিটির প্রধান কার্যালয় নগর ভবনের মেয়র হানিফ মিলনায়তনে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

করোনার বাধা পেরিয়েও মশন নিধন, খাল উদ্ধার, খেলার মাঠ করাসহ নিজের বেশ কিছু কর্মকাণ্ড তুলে ধরেন তিনি। এ ছাড়া আসছে তিন বছরে ইশতেহারে দেওয়া প্রতিশ্রুতি পূরণের আশ্বাসও দেন তিনি। এ সময় মেয়র চ্যালেঞ্জ ছুড়ে বলেন, দুর্নীতিমুক্ত প্রতিষ্ঠানের তালিকা হলে ডিএসসিসি থাকবে সবার উপরে।

নগরীর শৃঙ্খলা ফেরাতে রাত ৮টার মধ্যে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন দক্ষিণ সিটির মেয়র। তিনি বলেন, আসছে অর্থবছর থেকেই জরুরি পরিসেবা ছাড়া বন্ধ থাকবে সব প্রতিষ্ঠান।

তিনি বলেন, সব শহরই নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত চলার পর বন্ধ থাকে। তবে আমাদের শহরের কোনো সময় নেই। যে যার মতো ফ্রি স্টাইলে চলছে।

দক্ষিণ সিটির হিসাবে বর্তমানে আড়াই লাখ ব্যক্তি ব্যবসার অনুমতি বা ট্রেড লাইসেন্স নিয়ে ব্যবসা করছেন-এ কথা জানিয়ে মেয়র বলেন, বিভিন্ন জরিপে দেখা গেছে, ছয় লাখের বেশি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে। ঢাকা শহরে ব্যবসা-বাণিজ্য করতে হলে অবশ্যই বাণিজ্য-অনুমতি নিতে হবে। বাণিজ্য-অনুমতি না নিলে ব্যবসা করতে দেওয়া হবে না। আগামী ১ জুলাই থেকে এ ব্যাপারে আরও কঠোর হবেন তিনি। ছোট হোক বড় হোক, ঢাকা শহরে ট্রেড লাইসেন্স ছাড়া ব্যবসা করতে দেওয়া হবে না। অনুমতি না নিলে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিতে বাধ্য হবেন বলেও হুঁশিয়ারি দেন তাপস।

এ সময় মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, সব দোকানপাট, ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান রাত ৮টার মধ্যে বন্ধ করতে হবে। খাবার রেস্তোরাঁ রাত ১০টা পর্যন্ত চালু থাকতে পারে। এভাবে ঢাকাকে একটা সময়সীমার আওতায় আনতে হবে। এমনটা করা গেলে সামাজিক ও পারিবারিক বন্ধন দৃঢ় হবে বলেও মনে করেন তিনি।

মেয়র জানান, এ নিয়ে তিনি অংশীজনদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন। এটি বাস্তবায়নের জন্য কার্যক্রম হাতে নেওয়া হবে। এটি করা গেলে যানজটও নিরসন হবে বলে মনে করেন মেয়র।

যানজট নিরসনে সরকারের বহুমুখী কর্মপরিকল্পনার সঙ্গে সমন্বয় রেখে সিটি করপোরেশনের নেওয়া নানা পদক্ষেপও সংবাদ সম্মেলনে তুলে ধরেন মেয়র তাপস।

তিনি বলেন, ঢাকার গণপরিবহনে শৃঙ্খলা আনতে বাস রুট র‌্যাশনালাইজেশন কার্যক্রম চালু করতে সমর্থ হয়েছি। ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসে ঘাটারচর থেকে কাঁচপুর যাত্রাপথে পরীক্ষামূলকভাবে বহু আকাঙ্ক্ষিত ঢাকা নগর পরিবহন যাত্রা শুরু করে। ঢাকা নগর পরিবহন ইতোমধ্যে জনগণের প্রত্যাশা পূরণ করতে পেরেছে বলেই জনসাধারণের মাঝে তা সমাদৃত হয়েছে। আরও ৩টি নতুন যাত্রাপথে ঢাকা নগর পরিবহন চালু করার লক্ষ্যে আমাদের কার্যক্রম পুরোদমে এগিয়ে চলেছে।

সংবাদ সম্মেলনে আসন্ন বর্ষা মৌসুমে রাস্তা থেকে বৃষ্টির পানি আধা ঘণ্টার মধ্যে সরিয়ে নগরবাসীকে জলাবদ্ধতার ভোগান্তি থেকে মুক্ত করা হবে বলে জানান দক্ষিণের মেয়র।

তিনি বলেন, গত বর্ষা মৌসুমে এক ঘণ্টার মধ্যে রাস্তা থেকে বৃষ্টি পানি নামিয়ে জলাবদ্ধতা নিরসন করা হয়েছে। এবার আধা ঘণ্টায় সড়ক থেকে পানি সরানো হবে। সেভাবেই কার্যক্রম সাজানো হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে মেয়র তাপস আরও বলেন, ঢাকায় যে পরিমাণ বৃষ্টি হয়, সেই পানি ধারণ করার ক্ষমতা এই শহরের নেই। তাই বৃষ্টি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে কিছু জায়গায় হয়তোবা পানি জমতে পারে। সেটা যাতে দ্রুত নিষ্কাশিত হয়, সেই লক্ষ্যে সব কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা বিভিন্নভাবে কাজ করবেন। যাতে আধা ঘণ্টার বেশি পানি জমে না থাকে। সেই দৃঢ়তা নিয়ে তারা কর্মপরিকল্পনা সাজিয়েছেন। এতে সফল হবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন মেয়র।

সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা দক্ষিণ সিটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদ আহাম্মদ, সচিব আকরামুজ্জামান, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আরিফুল হক, প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা রাসেল সাবরিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
বিজনেস বাংলাদেশ/বিএইচ

এ বিভাগের আরও সংবাদ