ঢাকা দুপুর ২:১৯, শনিবার, ২৫শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সরকারী সম্পত্তি দখলকে কেন্দ্র করে রূপগঞ্জ ভুমি অফিসের সামনে দু’পক্ষের সংঘষে আহত-১২

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে সরকারী সম্পত্তি দখলকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মাঝে তুলকালাম কান্ডের ঘটনা ঘটেছে। এসময় উভয় পক্ষ ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, পাথর নিক্ষেপ ও রক্তক্ষয়ী সংঘষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘষে উভয় পক্ষের নারীসহ অন্তত ১২ জন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার (২১ জুন) বেলা ৩টার দিকে উপজেলার মঠেরঘাট এলাকার সহকারী কমিশনার (ভুমি) কাযালয়ের সামনে ঘটে এ সংঘষের ঘটনা। প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানান, উপজেলার মাঝিনা সুতিরপাড় এলাকায় প্রায়
এক বিঘা সরকারী সম্পত্তিতে বসবাস করে আসছেন আছমা বেগমের পরিবার ও ওসমান মিয়ার পরিবারের সদস্যরা। বেশ কয়েক মাস ধরেই ওসমান মিয়ার পরিবারের সদস্যরা আছমা বেগমের পরিবারকে সরকারী সম্পত্তি থেকে উচ্ছেদের পায়তারা চালিয়ে আসছিলো। এছাড়া এ সম্পত্তিকে কেন্দ্র করে ওসমান মিয়ার পরিবারের লোকজনের হামলায় আছমা বেগমের পরিবারের শহিদুল ইসলাম, শাহানারা বেগম, এসএসসি পরিক্ষাথী নুরে আলম আহত হয়। এদের মধ্যে শহিদুল ইসলামের হাত ভেঙ্গে দেয়া হয়। তাকে পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সরকারী সম্পত্তি লীজ গ্রহনের জন্য উভয় পক্ষ সহকারী কমিশনার (ভুমি) বরাবর আবেদন করেন। উভয় পক্ষের মতবিরোধ থাকার কারনে সহকারী কমিশনার (ভুমি) অফিসে মঙ্গলবার শুনানির দিন ধার্য করা হয়। শুানানিতে অংশ গ্রহন করতে বেলা ৩টার দিকে সহকারী কমিশনার (ভুমি) অফিসের সামনে উভয় পক্ষ হাজির হন। এসময় এক পক্ষ আরেক পক্ষকে উদ্দেশ্যে করে গালিগালাজ দিতে শুরু করে। এ সময় তারা একে অপরের সঙ্গে
হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন। এক পযায়ে দুই পক্ষের লোকজন মুহুতের মধ্যে তুলকালাম কান্ড ঘটিয়ে ফেলে। অফিসের প্রধান ফটকের সামনেই ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, পাথর নিক্ষেপ ও রক্তক্ষয়ী সংঘষে জড়িয়ে পড়েন। এসময় ভুমি অফিসের আশপাশে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। সংঘষে উভয় পক্ষের মোহাম্মদ আলী, শহিদুল ইসলাম, শাহ আলম, শাহানারা, সৌরভ, অজুফা বেগম, হারিজ মিয়া, আবুল
বাশার, মতিনসহ অন্তত ১২ জন আহত হন। এসময় স্থানীয় এলাকাবাসী ও ভুমি অফিসের কর্মচারীরা এসে উভয় পক্ষকে সরিয়ে দেন। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেসহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কমকতা (ওসি) এএফএম সায়েদ বলেন, এ ধরনের সংবাদ জানা নেই। যেহেতু আপনাদের মাধ্যমে জেনেছি এখনই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে ব্যবস্থা নিচ্ছি।

এ বিষয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) আতিকুল ইসলাম বলেন, আমি মিটিংয়ে থাকার কারনে শুনানি করতে পারেনি। তবে, শুনেছি দু’পক্ষের মাঝে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে।
বিজনেস বাংলাদেশ/বিএইচ

এ বিভাগের আরও সংবাদ