০৩:১৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪

লালমনিরহাটে তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি নিচে নামায় বন্ধ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

মাঘ মাসের প্রথম সপ্তাহের শীতে কাহিল হয়ে পড়েছে লালমনিরহাটবাসী। মাধ্যমিক ও প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো দুই দিনের ছুটি ঘোষনা করেছেন জেলা শিক্ষা বিভাগ।

জেলা শিক্ষা অফিসার মাহবুব রহমান জানান, লালমনিরহাটের তাপমাত্রা ১০ডিগ্রীর নিচে চলে এসেছে। এজন্য জেলার সকল মাধ্যমিক ও প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আজ সোমবার ও কাল মঙ্গলবার ছুটি ঘোষনা করা হয়েছে। তাপমাত্রা স্বাভাবিক না হলে এ ছুটি বাড়তে পারে বলেও তিনি জানান। এদিকে গত দুই দিনের হাড় কাঁপানো শীতে বিপর্যস্ত জনজিবন। কুয়াশার সাথে অব্যহত হিমেল হাওয়ায় শীত বেড়েছে উত্তরের জেলা লালমনিরহাটে। গত রাতভর পড়েছে বৃষ্টির মতো কুয়াশা। দেখা মিলছে না সূর্যের। আবহাওয়া অফিস জানালো আরও দীর্ঘ হতে পারে শৈত প্রবাহ।

কুড়িগ্রাম রাজারহাট কৃষি আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুবল চন্দ্র জানান, সোমবার (২২জানুয়ারি) সকাল ৯ টায় জেলার তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৯ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। শীতে কৃষিনির্ভর তিস্তা ও ধরলা চরাঞ্চলের মানুষ পড়েছে বিপাকে। প্রচন্ড শীতেও শ্রমজীবী ও নিম্নআয়ের মানুষজন বের হচ্ছেন জীবীকার সন্ধ্যানে। এখন পর্যন্ত নদী চরের অনেক এলাকায় সরকারি সহায়তা পাননি বলে অনেকের অভিযোগ। এদিকে হিমালয়ের কাছাকাছি হওয়ায় জেলার পাটগ্রাম উপজেলায় আরো বেশি শীত অনুভব হচ্ছে।

এদিকে প্রয়োজনীয় গরম কাপড়ের অভাবে কষ্ট পাচ্ছে দরিদ্র মানুষজন। খড় খুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারনের চেষ্টা করছেন গ্রামাঞ্চলের মানুষজন। প্রচন্ড শীতে বয়োবৃদ্ধ ও শিশুরা ডায়রিয়া এবং শ্বাসকষ্ট জনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হচ্ছেন হাসপাতালে।

লালমনিরহাট সিভিল সার্জন ডাঃ নির্মলেন্দু রায় শীতে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়ে বলেন, শীতের কারণে কয়েকদিন ধরে হাসপাতালগুলোতে সর্দি, কাশি ও শ্বাসকষ্ট জনিত রোগীর সংখ্যা বেড়ে গেছে। আমরা আমাদের সাধ্যমত সেবা দিচ্ছি।

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ উল্যাহ জানান, জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে বিভিন্ন স্থানে শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ চলছে। বরাদ্দকৃত দুই দফায় পাওয়া মোট ২৮ হাজার পিচ কম্বল বিতরণ শেষের দিকে। সংশ্লিষ্ট দপ্তরে আরো চাহিদা পাঠানো হয়েছে।

বিজনেস বাংলাদেশ/এমএইচটি

লালমনিরহাটে তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি নিচে নামায় বন্ধ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

প্রকাশিত : ০৪:৪৯:৩০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জানুয়ারী ২০২৪

মাঘ মাসের প্রথম সপ্তাহের শীতে কাহিল হয়ে পড়েছে লালমনিরহাটবাসী। মাধ্যমিক ও প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো দুই দিনের ছুটি ঘোষনা করেছেন জেলা শিক্ষা বিভাগ।

জেলা শিক্ষা অফিসার মাহবুব রহমান জানান, লালমনিরহাটের তাপমাত্রা ১০ডিগ্রীর নিচে চলে এসেছে। এজন্য জেলার সকল মাধ্যমিক ও প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আজ সোমবার ও কাল মঙ্গলবার ছুটি ঘোষনা করা হয়েছে। তাপমাত্রা স্বাভাবিক না হলে এ ছুটি বাড়তে পারে বলেও তিনি জানান। এদিকে গত দুই দিনের হাড় কাঁপানো শীতে বিপর্যস্ত জনজিবন। কুয়াশার সাথে অব্যহত হিমেল হাওয়ায় শীত বেড়েছে উত্তরের জেলা লালমনিরহাটে। গত রাতভর পড়েছে বৃষ্টির মতো কুয়াশা। দেখা মিলছে না সূর্যের। আবহাওয়া অফিস জানালো আরও দীর্ঘ হতে পারে শৈত প্রবাহ।

কুড়িগ্রাম রাজারহাট কৃষি আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুবল চন্দ্র জানান, সোমবার (২২জানুয়ারি) সকাল ৯ টায় জেলার তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৯ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। শীতে কৃষিনির্ভর তিস্তা ও ধরলা চরাঞ্চলের মানুষ পড়েছে বিপাকে। প্রচন্ড শীতেও শ্রমজীবী ও নিম্নআয়ের মানুষজন বের হচ্ছেন জীবীকার সন্ধ্যানে। এখন পর্যন্ত নদী চরের অনেক এলাকায় সরকারি সহায়তা পাননি বলে অনেকের অভিযোগ। এদিকে হিমালয়ের কাছাকাছি হওয়ায় জেলার পাটগ্রাম উপজেলায় আরো বেশি শীত অনুভব হচ্ছে।

এদিকে প্রয়োজনীয় গরম কাপড়ের অভাবে কষ্ট পাচ্ছে দরিদ্র মানুষজন। খড় খুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারনের চেষ্টা করছেন গ্রামাঞ্চলের মানুষজন। প্রচন্ড শীতে বয়োবৃদ্ধ ও শিশুরা ডায়রিয়া এবং শ্বাসকষ্ট জনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হচ্ছেন হাসপাতালে।

লালমনিরহাট সিভিল সার্জন ডাঃ নির্মলেন্দু রায় শীতে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়ে বলেন, শীতের কারণে কয়েকদিন ধরে হাসপাতালগুলোতে সর্দি, কাশি ও শ্বাসকষ্ট জনিত রোগীর সংখ্যা বেড়ে গেছে। আমরা আমাদের সাধ্যমত সেবা দিচ্ছি।

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ উল্যাহ জানান, জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে বিভিন্ন স্থানে শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ চলছে। বরাদ্দকৃত দুই দফায় পাওয়া মোট ২৮ হাজার পিচ কম্বল বিতরণ শেষের দিকে। সংশ্লিষ্ট দপ্তরে আরো চাহিদা পাঠানো হয়েছে।

বিজনেস বাংলাদেশ/এমএইচটি