০৯:৫৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪

নিপুণের ‘বিড়াল’ বের করে দেখতে বললেন ডিপজল

বাংলাদেশ শিল্পী সমিতির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজল ও চিত্রনায়িকা নিপুণের সঙ্গে দ্বন্দ্ব তৈরি হয়েছে। সময় গড়ালেও তাদের দূরত্ব কমেনি। ফের নিপুণকে নিয়ে মন্তব্য করে আলোচনার জন্ম দিলেন ডিপজল।

ডিপজলের হাত ধরে চলচ্চিত্রে পা রাখেন নিপুণ। কিন্তু নিপুণকে চলচ্চিত্রে নিয়ে আসা ডিপজলের ভুল সিদ্ধান্ত ছিল। দেশের একটি গণমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এমন মন্তব্য করেছেন ডিপজল।

এ বিষয়ে মনোয়ার হোসেন ডিপজল বলেন, ‘আমি নিপুণ বইল্যা সব বাদ দিয়া দিছি। আমি এখন বলি, নিপুণরে আমি ফিল্মে আনি নাই। নিপুণরে আমি চিনিও না। আমার মনে নয়, ফিল্মে নিপুণরে নিয়ে আসার সিদ্ধান্ত আমার ভুল ছিল। এই টাইপের মেয়ে আনা ঠিক না বলে মনে করি।’

নিপুণের ব্যবসা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ডিপজল। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘নিপুণের মূল ব্যবসাটি কি? তার কাজটা কি? উনি কি কাজ করেন, ওইটা একটু দেখেতে অইবো। আমি কি শুধু ফিল্ম থেকে টাকা কামাচ্ছি? না, ফিল্ম আমার প্রধান ব্যবসা না। তাহলে উনার (নিপুণ) প্রধান ব্যবসাটা কি? ওইটা একটু আপনারা খোঁজ নিয়া দেখেন না!’

নিপুণের পার্লার ব্যবসা আছে। তা উল্লেখ করে ডিপজল বলেন, ‘শুনলাম উনি (নিপুণ) পার্লার দিছে। ওইটা কীসের পার্লার? একদিন ওই পার্লারে আপনারা যান, ঢুকেন, দেখেন ওটা কীসের পার্লার! আপনারা গেলে বুঝতে পারবেন। উনি কোন বুদ্ধিজীবী, উনি কোনটা করে খাচ্ছেন, ওইটা আগে আপনারা দেখেন। উনি নাকি কিসের বিড়াল বের করবেন। উনার বিড়ালটা আপনারা বের করে দেখেন!’

চলতি বছর শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক পদে নিপুণ আক্তারকে পরাজিত করেন মনোয়ার হোসেন ডিপজল। তাদের জয়-পরাজয়ের মাঝে মাত্র ১৬ ভোটের ব্যবধান। নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার পর ডিপজলকে ফুলের মালা দিয়ে বরণ করে নেন নিপুণ। কিন্তু মাস না ঘুরতেই নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ এনে আদালতে রিট দায়ের করেন তিনি। পাশাপাশি নতুন করে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা ও মিশা-ডিপজলের নেতৃত্বাধীন কমিটির দায়িত্ব পালনে নিষেধাজ্ঞা চাওয়া হয়।

নিপুণের এই রিটের পরিপ্রেক্ষিতে সমিতির সাধারণ সম্পাদক পদটিতে ডিপজলের দায়িত্ব পালনে স্থগিতাদেশ দেন আদালত। যদিও সেই নিষেধাজ্ঞার আদেশ স্থগিত করেন চেম্বার আদালত। পুনরায় শিল্পী সমিতির সম্পাদক পদ ফিরে পান ডিপজল। এরপর তারা দু’জনেই নানারকম মন্তব্য করেছেন।

গত মেয়াদের নির্বাচনেও আদালতে রিট করেছিলেন নিপুণ। এ বিষয়ে ডিপজল বলেন, ‘টিকে থাকার জন্যই হয়তো চেয়ার (শিল্পী সমিতির পদ) টানাটানি করছে নিপুণ।’

বিজনেস বাংলাদেশ/একে

জনপ্রিয়

নিপুণের ‘বিড়াল’ বের করে দেখতে বললেন ডিপজল

প্রকাশিত : ১২:১৭:০১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ জুন ২০২৪

বাংলাদেশ শিল্পী সমিতির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজল ও চিত্রনায়িকা নিপুণের সঙ্গে দ্বন্দ্ব তৈরি হয়েছে। সময় গড়ালেও তাদের দূরত্ব কমেনি। ফের নিপুণকে নিয়ে মন্তব্য করে আলোচনার জন্ম দিলেন ডিপজল।

ডিপজলের হাত ধরে চলচ্চিত্রে পা রাখেন নিপুণ। কিন্তু নিপুণকে চলচ্চিত্রে নিয়ে আসা ডিপজলের ভুল সিদ্ধান্ত ছিল। দেশের একটি গণমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এমন মন্তব্য করেছেন ডিপজল।

এ বিষয়ে মনোয়ার হোসেন ডিপজল বলেন, ‘আমি নিপুণ বইল্যা সব বাদ দিয়া দিছি। আমি এখন বলি, নিপুণরে আমি ফিল্মে আনি নাই। নিপুণরে আমি চিনিও না। আমার মনে নয়, ফিল্মে নিপুণরে নিয়ে আসার সিদ্ধান্ত আমার ভুল ছিল। এই টাইপের মেয়ে আনা ঠিক না বলে মনে করি।’

নিপুণের ব্যবসা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ডিপজল। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘নিপুণের মূল ব্যবসাটি কি? তার কাজটা কি? উনি কি কাজ করেন, ওইটা একটু দেখেতে অইবো। আমি কি শুধু ফিল্ম থেকে টাকা কামাচ্ছি? না, ফিল্ম আমার প্রধান ব্যবসা না। তাহলে উনার (নিপুণ) প্রধান ব্যবসাটা কি? ওইটা একটু আপনারা খোঁজ নিয়া দেখেন না!’

নিপুণের পার্লার ব্যবসা আছে। তা উল্লেখ করে ডিপজল বলেন, ‘শুনলাম উনি (নিপুণ) পার্লার দিছে। ওইটা কীসের পার্লার? একদিন ওই পার্লারে আপনারা যান, ঢুকেন, দেখেন ওটা কীসের পার্লার! আপনারা গেলে বুঝতে পারবেন। উনি কোন বুদ্ধিজীবী, উনি কোনটা করে খাচ্ছেন, ওইটা আগে আপনারা দেখেন। উনি নাকি কিসের বিড়াল বের করবেন। উনার বিড়ালটা আপনারা বের করে দেখেন!’

চলতি বছর শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক পদে নিপুণ আক্তারকে পরাজিত করেন মনোয়ার হোসেন ডিপজল। তাদের জয়-পরাজয়ের মাঝে মাত্র ১৬ ভোটের ব্যবধান। নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার পর ডিপজলকে ফুলের মালা দিয়ে বরণ করে নেন নিপুণ। কিন্তু মাস না ঘুরতেই নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ এনে আদালতে রিট দায়ের করেন তিনি। পাশাপাশি নতুন করে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা ও মিশা-ডিপজলের নেতৃত্বাধীন কমিটির দায়িত্ব পালনে নিষেধাজ্ঞা চাওয়া হয়।

নিপুণের এই রিটের পরিপ্রেক্ষিতে সমিতির সাধারণ সম্পাদক পদটিতে ডিপজলের দায়িত্ব পালনে স্থগিতাদেশ দেন আদালত। যদিও সেই নিষেধাজ্ঞার আদেশ স্থগিত করেন চেম্বার আদালত। পুনরায় শিল্পী সমিতির সম্পাদক পদ ফিরে পান ডিপজল। এরপর তারা দু’জনেই নানারকম মন্তব্য করেছেন।

গত মেয়াদের নির্বাচনেও আদালতে রিট করেছিলেন নিপুণ। এ বিষয়ে ডিপজল বলেন, ‘টিকে থাকার জন্যই হয়তো চেয়ার (শিল্পী সমিতির পদ) টানাটানি করছে নিপুণ।’

বিজনেস বাংলাদেশ/একে