ঢাকা সকাল ৬:৫২, বুধবার, ১লা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সুদানে প্রধানমন্ত্রীসহ কয়েকজন মন্ত্রী গ্রেফতার

সুদানের যৌথ সামরিক বাহিনী অন্তর্বর্তী সরকারের প্রধানমন্ত্রী আব্দাল্লা হ্যামডকসহ মন্ত্রিসভার বেশিরভাগ সদস্যকে আটক করেছে। সামরিক বাহিনীর প্রধান অন্তর্বর্তী সরকার বিলুপ্ত ঘোষণা করেছেন।

সুদানে তিন দশক ধরে দায়িত্ব পালন করা ওমর আল-বশিরকে ২০১৯ সালের এপ্রিলে পদত্যাগে বাধ্য করা হয়। এর তিন মাস পর দেশ পরিচালনায় সামরিক ও রাজনৈতিক দলের নিয়োগ দেয়া ব্যক্তিদের নিয়ে একটি অন্তর্বর্তী সরকার গঠন করা হয়েছিল। ২০২৩ সাল শেষ হওয়ার আগে নির্বাচন আয়োজনের কথা ছিল তাদের।

কিন্তু তার আগেই সোমবার এই ঘটনা ঘটলো৷ সুদানের রাজধানী খার্তুমের বিমানবন্দর বন্ধ করে দেয়া হয়েছে৷ রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে দেশাত্মবোধক গান প্রচার করা হচ্ছে৷

সুদান পরিচালনাকারী সভরেন কাউন্সিলের প্রধান জেনারেল আবদেল ফাত্তাহ আল-বুরহান জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন। তিনি ২০২৩ সালের জুলাইয়ের মধ্যে নির্বাচন আয়োজনের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী আব্দাল্লা হ্যামডককে আটক করে অভ্যুত্থানের পক্ষে বিবৃতি দিতে বলা হয়েছিল। কিন্তু তিনি তা না করায় তাকে গোপন কোনো জায়গায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে তথ্য মন্ত্রণালয়।

বুরহানের বিবৃতিকে ‘সামরিক অভ্যুত্থান’ আখ্যায়িত করে তার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছে তথ্য মন্ত্রণালয়। তারা বলছে, হাজার হাজার মানুষ ইতিমধ্যে অভ্যুত্থানের প্রতিবাদে রাস্তায় নেমেছেন।

খার্তুমের সেনা সদর দপ্তরের সামনে তারা গোলাগুলির মুখে পড়েছেন। সংঘর্ষে অন্তত ১২ জন আহত হয়েছেন বলে ডাক্তারদের এক সংগঠন ফেসবুকে জানিয়েছে।

অন্তর্বর্তী সরকারে সামরিক বাহিনীর ভূমিকা অনেকটা সম্মানজনক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু পররাষ্ট্রনীতি ও শান্তি আলোচনার বিষয়গুলো সামরিক বাহিনী হস্তক্ষেপ করছিল বলে অভিযোগ উঠেছিল।

এদিকে, সরকারের বেসামরিক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে অব্যবস্থাপনা ও ক্ষমতা কুক্ষিগত করার অভিযোগ এনেছিল সামরিক বাহিনী। এই অবস্থায় কয়েকটি বিদ্রোহী গোষ্ঠী ও রাজনৈতিক দল বেসামরিক মন্ত্রিসভা বিলুপ্ত করতে সামরিক বাহিনীর প্রতি ঝুঁকেছিল।

কর্তৃপক্ষ বলছে, গতমাসে ওমর আল-বশিরের সমর্থকরা অভ্যুত্থানের চেষ্টা করেছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, যে ইন্টারনেট বন্ধ রয়েছে এবং শহরজুড়ে সেনা ও আধাসামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। খার্তুম বিমানবন্দর বন্ধ রয়েছে এবং আন্তর্জাতিক ফ্লাইট স্থগিত করা হয়েছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, জাতিসংঘ, ইইউ এবং আরব লীগও গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। সূত্র: ডয়চে ভেলে

বিজনেস বাংলাদেশ/ এ আর

এ বিভাগের আরও সংবাদ