০৪:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪

বাজেট প্রতিক্রিয়ায় যা বললেন মন্ত্রী-এমপিরা

সংকটের এই সময়ে গণমুখী বাজেট হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, “দলের নির্বাচনী ইশতেহারে দেয়া অঙ্গীকার ও অগ্রাধিকার খাত বিবেচনায় নিয়ে বাজেট দেওয়া হয়েছে। কারও প্রেসক্রিপশন মেনে বাজেট প্রণয়ন হয়নি। বাস্তবসম্মত হয়েছে এই বাজেট।”

অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর বাজেট প্রস্তাব উপস্থাপনের পর বৃহস্পতিবার (৬ জুন) বিকেলে এ প্রতিক্রিয়া জানান তিনি।

শুধু ওবায়দুল কাদের নন, বাজেট প্রস্তাব নিয়ে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন আরও কয়েকজন সংসদ সদস্য ও মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেন, “বাজেট ভালো হয়েছে। স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে ভালো বাজেট। ব্যবসায়ীরা এতে কী প্রতিক্রিয়া দেয় তা দেখব।”

তথ্য প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আলী আরাফাত বলেন, “যেসব উন্নয়ন এর আগে হয়েছে, সেগুলো বিবেচনায় নিয়ে কোথায় যেতে চাই আমরা, তা ভেবেই বাজেট তৈরি হয়েছে। যারা প্রেসক্রিপশন নিয়ে বাজেট দিতো, তারাই বিদেশি প্রেসক্রিপশনে বাজেট হয়েছে বলে সমালোচনা করছেন।”

বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু বলেন, “অনেক কিছুর ওপর থেকে ট্যাক্স কমানো হয়েছে। ফলে সাধারণ মানুষের জন্য এই বাজেট বেশ উপকারী হবে।”

সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল (অব) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম (কল্যাণ পার্টি) বলেন, “মুদ্রাস্ফীতি এই বাজেটে বাড়বে, এটার কোনো নিশ্চয়তা বা আশঙ্কা নেই। মানুষের ওপর চাপ পড়বে, এটা স্বাভাবিক। তবে পদক্ষেপগুলো বাস্তবায়ন করা গেলে সংকট কমবে।”

সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম বলেন, “উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে এই বাজেট বেশ কার্যকর।”

সংসদ সদস্য ফেরদৌস আহমেদ বলেন, “জনবান্ধব বাজেট। প্রতিটা সেক্টরকে মাথায় রেখে বাজেট করা হয়েছে।”

সংসদ সদস্য আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী বলেন, “আওয়ামী লীগের বাজেট সবসময় গণমুখী হয়েছে। বাজেট নিয়ে মাসজুড়েই আলোচনা হবে।”

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সংসদ সদস্য রাশেদ খান মেনন বলেন, “বর্তমান বাস্তবতায় বাজেটে সন্তুষ্ট হওয়ার মতো কিছু নেই। দায় পড়বে জনগণের ওপর। আইএমএফের শর্ত পূরণ ছাড়া এই বাজেট দিতে পারে না সরকার।”

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান বলেন, “এই বাজেটে চাপ বাড়বে, এটা এখনই বলা যাবে না। বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে চ্যালেঞ্জিং বাজেট। তবে এটির সঠিকভাবে বাস্তবায়ন নিয়ে আমি আশাবাদী।”

সংসদ সদস্য শাহজাহান ওমর ও রুহুল আমিন হাওলাদার বলেন, “বাজেট ভালো হয়েছে। সাধারণ মানুষের কথা ভেবে বাজেট বানানো হয়েছে।”

এর আগে বৃহস্পতিবার বিকেলে জাতীয় সংসদে ২০২৪-২৫ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাব পেশ করেন অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।

‘সুখী সমৃদ্ধ উন্নত ও স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণের অঙ্গীকার’ শীর্ষক এই বাজেটের আকার দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড়। এবার ৭ লাখ ৯৬ হাজার ৯০০ কোটি টাকার জাতীয় বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। যা আগের অর্থবছরের (২০২৩-২৪) চেয়ে ৩৬ হাজার কোটি টাকা বেশি।

এটি দেশের ৫৩তম এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের টানা চতুর্থ মেয়াদের ও অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর প্রথম বাজেট। আগামী ৩০ জুন এ বাজেট পাস হওয়ার কথা রয়েছে।”

বিজনেস বাংলাদেশ/BH

ট্যাগ :
জনপ্রিয়

বিশ্বকাপের মাঝেই দেশে ফেরত পাঠানো হচ্ছে ভারতের দুই ক্রিকেটারকে

বাজেট প্রতিক্রিয়ায় যা বললেন মন্ত্রী-এমপিরা

প্রকাশিত : ০৮:০০:৩৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ জুন ২০২৪

সংকটের এই সময়ে গণমুখী বাজেট হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, “দলের নির্বাচনী ইশতেহারে দেয়া অঙ্গীকার ও অগ্রাধিকার খাত বিবেচনায় নিয়ে বাজেট দেওয়া হয়েছে। কারও প্রেসক্রিপশন মেনে বাজেট প্রণয়ন হয়নি। বাস্তবসম্মত হয়েছে এই বাজেট।”

অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর বাজেট প্রস্তাব উপস্থাপনের পর বৃহস্পতিবার (৬ জুন) বিকেলে এ প্রতিক্রিয়া জানান তিনি।

শুধু ওবায়দুল কাদের নন, বাজেট প্রস্তাব নিয়ে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন আরও কয়েকজন সংসদ সদস্য ও মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেন, “বাজেট ভালো হয়েছে। স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে ভালো বাজেট। ব্যবসায়ীরা এতে কী প্রতিক্রিয়া দেয় তা দেখব।”

তথ্য প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আলী আরাফাত বলেন, “যেসব উন্নয়ন এর আগে হয়েছে, সেগুলো বিবেচনায় নিয়ে কোথায় যেতে চাই আমরা, তা ভেবেই বাজেট তৈরি হয়েছে। যারা প্রেসক্রিপশন নিয়ে বাজেট দিতো, তারাই বিদেশি প্রেসক্রিপশনে বাজেট হয়েছে বলে সমালোচনা করছেন।”

বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু বলেন, “অনেক কিছুর ওপর থেকে ট্যাক্স কমানো হয়েছে। ফলে সাধারণ মানুষের জন্য এই বাজেট বেশ উপকারী হবে।”

সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল (অব) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম (কল্যাণ পার্টি) বলেন, “মুদ্রাস্ফীতি এই বাজেটে বাড়বে, এটার কোনো নিশ্চয়তা বা আশঙ্কা নেই। মানুষের ওপর চাপ পড়বে, এটা স্বাভাবিক। তবে পদক্ষেপগুলো বাস্তবায়ন করা গেলে সংকট কমবে।”

সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম বলেন, “উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে এই বাজেট বেশ কার্যকর।”

সংসদ সদস্য ফেরদৌস আহমেদ বলেন, “জনবান্ধব বাজেট। প্রতিটা সেক্টরকে মাথায় রেখে বাজেট করা হয়েছে।”

সংসদ সদস্য আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী বলেন, “আওয়ামী লীগের বাজেট সবসময় গণমুখী হয়েছে। বাজেট নিয়ে মাসজুড়েই আলোচনা হবে।”

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সংসদ সদস্য রাশেদ খান মেনন বলেন, “বর্তমান বাস্তবতায় বাজেটে সন্তুষ্ট হওয়ার মতো কিছু নেই। দায় পড়বে জনগণের ওপর। আইএমএফের শর্ত পূরণ ছাড়া এই বাজেট দিতে পারে না সরকার।”

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান বলেন, “এই বাজেটে চাপ বাড়বে, এটা এখনই বলা যাবে না। বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে চ্যালেঞ্জিং বাজেট। তবে এটির সঠিকভাবে বাস্তবায়ন নিয়ে আমি আশাবাদী।”

সংসদ সদস্য শাহজাহান ওমর ও রুহুল আমিন হাওলাদার বলেন, “বাজেট ভালো হয়েছে। সাধারণ মানুষের কথা ভেবে বাজেট বানানো হয়েছে।”

এর আগে বৃহস্পতিবার বিকেলে জাতীয় সংসদে ২০২৪-২৫ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাব পেশ করেন অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।

‘সুখী সমৃদ্ধ উন্নত ও স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণের অঙ্গীকার’ শীর্ষক এই বাজেটের আকার দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড়। এবার ৭ লাখ ৯৬ হাজার ৯০০ কোটি টাকার জাতীয় বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। যা আগের অর্থবছরের (২০২৩-২৪) চেয়ে ৩৬ হাজার কোটি টাকা বেশি।

এটি দেশের ৫৩তম এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের টানা চতুর্থ মেয়াদের ও অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর প্রথম বাজেট। আগামী ৩০ জুন এ বাজেট পাস হওয়ার কথা রয়েছে।”

বিজনেস বাংলাদেশ/BH