ঢাকা সকাল ১০:৫৮, সোমবার, ২৮শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

প্রথম ম্যাচেই নাসিরের চমক!

উদ্বোধনী দিনেই সিলেটে জমে উঠেছে বিপিএলের পঞ্চম আসর। অধিনায়ক নাসিরের নৈপুণ্যে প্রথম দিনেই বাজিমাত করেছে সিলেট। গতবারের চ্যাম্পিয়ন ঢাকা ডায়নামাইটসকে ঘরের মাঠে হেসে খেলে হারিয়েছে সিলেট সুরমা সিক্সার্স। আর অধিনায়ক হিসেবে এবারের বিপিএলের প্রথম ম্যাচেই সাফল্য পেয়েছেন নাসির হোসেন। তার অধিনায়কত্বের চমক দেখেছেন দর্শকরা। ফল, ঢাকার বিপক্ষে ৯ উইকেটের বিশাল ব্যবধানের জয়।
অধিনায়কত্বের পাশাপাশি পারফরম্যান্সের দিক দিয়েও ব্যক্তি নাসির দারুণ খেলেছেন আজ।
টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং নেয়ার পর প্রথম ওভারেই ঢাকা উদ্বোধনী জুটি ভেঙে দেন সিলেট অধিনায়ক নাসির। দলীয় মাত্র ২ রানেই মেহেদী মারুফকে শিকারে পরিণত করে সিলেট শিবিরে এনে দেন বাঁধভাঙা উল্লাস। আর ক্রমেই বিপজ্জনক হয়ে ওঠা ক্যারিবীয় ব্যাটিং স্তম্ভ এভিন লুইসকে ফিরিয়ে দিয়ে কম রানে বেঁধে ফেলতে বিশেষ ভূমিকা রাখেন।

সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৩৬ রান সংগ্রহ করে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ঢাকা ডায়নামাইটস।
ঢাকার পক্ষে সর্বেচ্চ ৩২ রান করেন লঙ্কান লিজেন্ড কুমার সাঙ্গাকারা। অপরপক্ষে ২টি করে উইকেট নিয়েছেন সিলেটের অধিনায়ক নাসির হোসেন ও আবুল হাসান রাজু।
১৩৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে এক উইকেট হারিয়েই জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় সিলেট। সিলেটের পক্ষে থারাঙ্গা ৬৯ এবং ফ্লেচার ৬৩ রান করেন।
ম্যাচ শেষে নাসির হোসেন সমর্থকদের উদ্দেশে বলেন, উদ্বোধনী ম্যাচে যেভাবে আমাদের সাপোর্ট দিয়েছেন সেভাবে আগামী ম্যাচেও আপনারা আমাদের সাপোর্ট করবেন বলে আশা করি।
প্রসঙ্গত, বিপিএলে নাসির এর আগে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন মাত্র দুই ম্যাচে। ২০১৩ বিপিএলে রংপুর রাইডার্সের হয়ে ঢাকার বিপক্ষে অধিনায়কত্ব করেছিলেন ২৫ বছর বয়সী এ অলরাউন্ডার। আরেকটি ২০১৫ বিপিএলে ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে বরিশাল বুলসের বিপক্ষে। দুই ম্যাচেই হেরেছিল তার দল। ওই দুই ম্যাচেই অধিনায়ক নাসিরের ব্যাট থেকে এসেছিল ১৪ রান।

এ বিভাগের আরও সংবাদ