০৭:৪৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪
ফায়ার সার্ভিসের প্রশিক্ষণ সমাপনী অনুষ্ঠানে

নবীন সদস্যদের শৃঙ্খলার সাথে দায়িত্ব পালনের আহ্বান: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, এমপি শৃংখলার মান ধরে রেখে নবনিযুক্ত ফায়ারফাইটার ও ড্রাইভারদের দেশের সেবায় নিয়োজিত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন। ২ জুন রবিবার ১৫-৩০ ঘটিকায় ঢাকার মিরপুরে অবস্থিত ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স ট্রেনিং কমপ্লেক্সে সাফল্যের সাথে প্রশিক্ষণ সমাপ্ত করা ৬৩তম ব্যাচের ফায়ারফাইটার, ১ম ব্যাচের মহিলা ফায়ারফাইটার ও ৫৩তম ব্যাচের ড্রাইভারদের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণ দানকালে তিনি এ আহ্বান জানান। বক্তব্যের শুরুতে তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, ১৫ আগস্ট তাঁর পরিবারের শহিদ সকল সদস্য, মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী বীর শহিদদের এবং ১৩ অগ্নি বীরসহ বিভিন্ন দুর্ঘটনায় অগ্নিনির্বাপণ ও উদ্ধারকাজে অংশ নিয়ে মৃত্যুবরণকারী শহিদ অগ্নিসেনাদের গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন।

অনুষ্ঠানে সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব জনাব মোঃ আবদুল্লাহ আল মাসুদ চৌধুরী বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এ সময় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ মাইন উদ্দিন, বিএসপি (বার), এনডিসি, পিএসসি, জি, এম ফিল, পরিচালকগণসহ মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের বিভিন্ন পদমর্যাদার কর্মকর্তাগণ, ট্রেনিং কমপ্লেক্সের অধ্যক্ষ, নবীন ফায়ারফাইটারদের অভিভাবকগণসহ আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

১৫-০০ ঘটিকায়  স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পরিবাহিত গাড়ি ট্রেনিং কমপ্লেক্সে প্রবেশ করলে বিউগলের সুর মূর্ছনা ধ্বনিত হয়। এ সময় অধিপ্তরের মহাপরিচালক  প্রধান অতিথিকে স্বাগত জানিয়ে অভিবাদন মঞ্চ আরোহন করেন। পতাকাবাহী কনটিনজেন্টসহ ৪টি কন্টিনজেন্টের সদস্যরা এ সময়  প্রধান অতিথিকে সশ্রদ্ধ অভিবাদন জ্ঞাপন করেন। প্রধান অতিথি কনটিনজেন্ট পরিদর্শন করেন, মার্চ পাস্ট প্রত্যক্ষ করেন ও অভিবাদন গ্রহণ করেন। দীর্ঘ ৬ মাসের প্রশিক্ষণকালীন সার্বিক বিচারে শ্রেষ্ঠ হওয়া ৩ জনকে চৌকস পদক পরিয়ে দেন  প্রধান অতিথি। এ অনুষ্ঠানে নবীন ফায়ারফাইটার ও ড্রাইভারদের শপথবাক্য পাঠ করান ট্রেনিং কমপ্লেক্সের অ্যাডজুটেন্ট মোহাম্মদ মামুন।  প্রধান অতিথি সমাপনী অনুষ্ঠানের কেক কাটেন। এ সময় প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথির হাতে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স-এর স্মৃতির নিদর্শন হিসেবে শুভেচ্ছা ক্রেস্ট তুলে দেন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ মাইন উদ্দিন।

প্রধান অতিথির ভাষণে  স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জনাব আসাদুজ্জামান খান, এমপি ফায়ার সার্ভিসের ‘স্বাধীনতা পুরস্কার ২০২৩’ অর্জন এবং আজীবন রেশন বাস্তবায়নের কথা উল্লেখ করে এ জন্য  প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। সাফল্যের সাথে প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করায় তিনি নীবন ফায়ারফাইটার ও ড্রাইভারদের আন্তরিক অভিনন্দন জানান। তিনি তাদের উদ্দেশে বলেন, “সেবাধর্মী প্রতিষ্ঠানের কর্মী হিসেবে আপনাদের শৃঙ্খলার সাথে মানুষের জান-মাল রক্ষার পবিত্র দায়িত্ব পালন করতে হবে। প্রশিক্ষণকালে আপনারা নিজেদেরকে শারীরিক ও মানসিকভাবে যোগ্য করে গড়ে তুলেছেন। এখন নিজ নিজ কর্মস্থলে অর্পিত দায়িত্ব ও কর্তব্য নিষ্ঠার সাথে পালন করতে হবে।”

১ম ব্যাচের মহিলা ফায়ারফাইটারদের উদ্দেশে  প্রধান অতিথি বলেন, “আপনারা জানেন, দেশের কাঙ্ক্ষিত উন্নয়নের জন্য নারী-পুরুষের যৌথ অংশগ্রহণ গুরুত্বপূর্ণ। আগুন নেভানোর মতো চ্যালেঞ্জিং পেশায় নারীর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে আমরা ‘ফায়ারম্যান’ পদের নাম ‘ফায়ারফাইটার’ করেছি। এর পরপরই প্রথমবারের মতো ফায়ার সার্ভিসে আপনাদের ১৫ জনকে মহিলা ফায়ারফাইটার হিসেবে নিয়োগ প্রদান করা হয়। আজ আপনারা সাফল্যের সাথে প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করলেন। আমি আশা করবো, অগ্নিনির্বাপণ ও উদ্ধারকাজে আপনারাও সাফল্যের সাক্ষর রাখবেন। আর আগামীতেও মহিলা ফায়ারফাইটার নিয়োগের এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে বলে আমি আশা করি।”

প্রশিক্ষণ সমাপনী অনুষ্ঠানে প্যারেড কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করেন ফিজিক্যাল ইন্সট্রাক্টর সেন্টু চন্দ্র সেন। অনুষ্ঠানের ধারা বর্ণনা করেন উপসহকারী পরিচালক মোঃ শাহজাহান শিকদার, সিনিয়র স্টেশন অফিসার রায়হানুল আশরাফ ও ডা. মোস্তফা আব্দুর রহিম ও স্টেশন অফিসার আসাদুজ্জামান। উল্লেখ্য, একই সময় রংপুর বিভাগ, খুলনা বিভাগ ও রাজশাহী বিভাগেও প্রশিক্ষণ সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

ঢাকার ২১০ জন ফায়ারফাইটার, ১৫ জন মহিলা ফায়ারফাইটারসহ সব মিলিয়ে মোট ৪৫১ জন ফায়ারফাইটার ও ৮৪ জন ড্রাইভার সাফল্যের সাথে প্রশিক্ষণ শেষ করে কর্মস্থলে যোগদান করতে যাচ্ছেন।

বিজনেস বাংলাদেশ/DS

ট্যাগ :
জনপ্রিয়

বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক দ্রুত অগ্রসর হচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী

ফায়ার সার্ভিসের প্রশিক্ষণ সমাপনী অনুষ্ঠানে

নবীন সদস্যদের শৃঙ্খলার সাথে দায়িত্ব পালনের আহ্বান: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত : ০৫:০০:২৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩ জুন ২০২৪

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, এমপি শৃংখলার মান ধরে রেখে নবনিযুক্ত ফায়ারফাইটার ও ড্রাইভারদের দেশের সেবায় নিয়োজিত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন। ২ জুন রবিবার ১৫-৩০ ঘটিকায় ঢাকার মিরপুরে অবস্থিত ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স ট্রেনিং কমপ্লেক্সে সাফল্যের সাথে প্রশিক্ষণ সমাপ্ত করা ৬৩তম ব্যাচের ফায়ারফাইটার, ১ম ব্যাচের মহিলা ফায়ারফাইটার ও ৫৩তম ব্যাচের ড্রাইভারদের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণ দানকালে তিনি এ আহ্বান জানান। বক্তব্যের শুরুতে তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, ১৫ আগস্ট তাঁর পরিবারের শহিদ সকল সদস্য, মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী বীর শহিদদের এবং ১৩ অগ্নি বীরসহ বিভিন্ন দুর্ঘটনায় অগ্নিনির্বাপণ ও উদ্ধারকাজে অংশ নিয়ে মৃত্যুবরণকারী শহিদ অগ্নিসেনাদের গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন।

অনুষ্ঠানে সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব জনাব মোঃ আবদুল্লাহ আল মাসুদ চৌধুরী বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এ সময় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ মাইন উদ্দিন, বিএসপি (বার), এনডিসি, পিএসসি, জি, এম ফিল, পরিচালকগণসহ মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের বিভিন্ন পদমর্যাদার কর্মকর্তাগণ, ট্রেনিং কমপ্লেক্সের অধ্যক্ষ, নবীন ফায়ারফাইটারদের অভিভাবকগণসহ আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

১৫-০০ ঘটিকায়  স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পরিবাহিত গাড়ি ট্রেনিং কমপ্লেক্সে প্রবেশ করলে বিউগলের সুর মূর্ছনা ধ্বনিত হয়। এ সময় অধিপ্তরের মহাপরিচালক  প্রধান অতিথিকে স্বাগত জানিয়ে অভিবাদন মঞ্চ আরোহন করেন। পতাকাবাহী কনটিনজেন্টসহ ৪টি কন্টিনজেন্টের সদস্যরা এ সময়  প্রধান অতিথিকে সশ্রদ্ধ অভিবাদন জ্ঞাপন করেন। প্রধান অতিথি কনটিনজেন্ট পরিদর্শন করেন, মার্চ পাস্ট প্রত্যক্ষ করেন ও অভিবাদন গ্রহণ করেন। দীর্ঘ ৬ মাসের প্রশিক্ষণকালীন সার্বিক বিচারে শ্রেষ্ঠ হওয়া ৩ জনকে চৌকস পদক পরিয়ে দেন  প্রধান অতিথি। এ অনুষ্ঠানে নবীন ফায়ারফাইটার ও ড্রাইভারদের শপথবাক্য পাঠ করান ট্রেনিং কমপ্লেক্সের অ্যাডজুটেন্ট মোহাম্মদ মামুন।  প্রধান অতিথি সমাপনী অনুষ্ঠানের কেক কাটেন। এ সময় প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথির হাতে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স-এর স্মৃতির নিদর্শন হিসেবে শুভেচ্ছা ক্রেস্ট তুলে দেন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ মাইন উদ্দিন।

প্রধান অতিথির ভাষণে  স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জনাব আসাদুজ্জামান খান, এমপি ফায়ার সার্ভিসের ‘স্বাধীনতা পুরস্কার ২০২৩’ অর্জন এবং আজীবন রেশন বাস্তবায়নের কথা উল্লেখ করে এ জন্য  প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। সাফল্যের সাথে প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করায় তিনি নীবন ফায়ারফাইটার ও ড্রাইভারদের আন্তরিক অভিনন্দন জানান। তিনি তাদের উদ্দেশে বলেন, “সেবাধর্মী প্রতিষ্ঠানের কর্মী হিসেবে আপনাদের শৃঙ্খলার সাথে মানুষের জান-মাল রক্ষার পবিত্র দায়িত্ব পালন করতে হবে। প্রশিক্ষণকালে আপনারা নিজেদেরকে শারীরিক ও মানসিকভাবে যোগ্য করে গড়ে তুলেছেন। এখন নিজ নিজ কর্মস্থলে অর্পিত দায়িত্ব ও কর্তব্য নিষ্ঠার সাথে পালন করতে হবে।”

১ম ব্যাচের মহিলা ফায়ারফাইটারদের উদ্দেশে  প্রধান অতিথি বলেন, “আপনারা জানেন, দেশের কাঙ্ক্ষিত উন্নয়নের জন্য নারী-পুরুষের যৌথ অংশগ্রহণ গুরুত্বপূর্ণ। আগুন নেভানোর মতো চ্যালেঞ্জিং পেশায় নারীর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে আমরা ‘ফায়ারম্যান’ পদের নাম ‘ফায়ারফাইটার’ করেছি। এর পরপরই প্রথমবারের মতো ফায়ার সার্ভিসে আপনাদের ১৫ জনকে মহিলা ফায়ারফাইটার হিসেবে নিয়োগ প্রদান করা হয়। আজ আপনারা সাফল্যের সাথে প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করলেন। আমি আশা করবো, অগ্নিনির্বাপণ ও উদ্ধারকাজে আপনারাও সাফল্যের সাক্ষর রাখবেন। আর আগামীতেও মহিলা ফায়ারফাইটার নিয়োগের এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে বলে আমি আশা করি।”

প্রশিক্ষণ সমাপনী অনুষ্ঠানে প্যারেড কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করেন ফিজিক্যাল ইন্সট্রাক্টর সেন্টু চন্দ্র সেন। অনুষ্ঠানের ধারা বর্ণনা করেন উপসহকারী পরিচালক মোঃ শাহজাহান শিকদার, সিনিয়র স্টেশন অফিসার রায়হানুল আশরাফ ও ডা. মোস্তফা আব্দুর রহিম ও স্টেশন অফিসার আসাদুজ্জামান। উল্লেখ্য, একই সময় রংপুর বিভাগ, খুলনা বিভাগ ও রাজশাহী বিভাগেও প্রশিক্ষণ সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

ঢাকার ২১০ জন ফায়ারফাইটার, ১৫ জন মহিলা ফায়ারফাইটারসহ সব মিলিয়ে মোট ৪৫১ জন ফায়ারফাইটার ও ৮৪ জন ড্রাইভার সাফল্যের সাথে প্রশিক্ষণ শেষ করে কর্মস্থলে যোগদান করতে যাচ্ছেন।

বিজনেস বাংলাদেশ/DS